সিলেটে জ্বালানি ও পরিবহন খাতে অস্থিরতা, তেলশূন্য পাম্প

2ডেস্ক রিপোর্ট :: সিলেটের জ্বালানি ও পরিবহন খাতে গত প্রায় সপ্তাহখানেক ধরে চরম অস্থিরতা বিরাজ করছে। দক্ষিণ সুরমার বাইপাসস্থ সাউথ সুরমা সিএনজি ফিলিং স্টেশনে হামলা ও লুটপাটের জের ধরে এ অস্থিরতা বিরাজমান। ওই হামলা ও লুটপাটের ঘটনায় জ্বালানি খাত সংশ্লিষ্ট সংগঠন এবং পরিবহন খাত সংশ্লিষ্ট সংগঠনগুলো মুখোমুখি অবস্থান নিয়েছে। ধর্মঘটসহ সংগঠনগুলোর পাল্টাপাল্টি বিভিন্ন কর্মসূচীতে একদিকে তেলশূন্য হয়ে পড়ছে সিলেটের পাম্পগুলো, অন্যদিকে দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন সাধারণ মানুষ।

গত ১১ এপ্রিল সিলেট মহানগরীর ২৫নং ওয়ার্ডস্থ বাইপাস সড়কের সাউথ সুরমা সিএনজি ফিলিং স্টেশনে হামলা ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় সিলেট জেলা পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি সেলিম আহমদ ফলিকসহ ৪ জনকে আসামি করে মামলা করতে গেলে পুলিশ ফলিকের নাম বাদ দিতে বলে। মামলা গৃহিত না হওয়ায় জ্বালানি খাত সংশ্লিষ্ট বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম ডিলারস, ডিস্ট্রিবিউটারস, এজেন্টস্ এন্ড পেট্রোল পাম্প ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন সিলেট বিভাগীয় কমিটি, বাংলাদেশ সিএনজি ফিলিং স্টেশন এন্ড কনভার্শন ওয়ার্কশপ ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন সিলেট বিভাগীয় কমিটি, বাংলাদেশ ট্যাংক-লরি ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন সিলেট বিভাগীয় কমিটি এবং সিলেট জেলা ট্যাংক-লরি শ্রমিক ইউনিয়ন ধর্মঘটের ডাক দেয়। পরে ফলিকের নামে মামলা গৃহিত হলে ধর্মঘট প্রত্যাহার করা হয়।

এদিকে সেলিম আহমদ ফলিকের নামে মামলার প্রতিবাদে এবং সিলেট সিএনজি পেট্রোল পাম্প ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি জুবায়ের আহমদ চৌধুরীর বিরুদ্ধে মামলা গ্রহণের দাবিতে শুক্রবার থেকে সিলেট বিভাগে পরিবহন ধর্মঘটের ডাক দেয় পরিবহন খাত সংশ্লিষ্ট সংগঠনগুলো। তবে জুবায়ের আহমদের বিরুদ্ধে মামলা গৃহিত হওয়ায় ধর্মঘট প্রত্যাহার করা হয়।

এরপর ঘটনা মোড় নেয় অন্যদিকে। বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম ডিলারস, ডিস্ট্রিবিউটারস, এজেন্টস্ এন্ড পেট্রোলপাম্প ওনার্স এসোসিয়েশনের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি জুবায়ের আহমদ চৌধুরীসহ অন্যদের বিরুদ্ধে দক্ষিণ সুরমা থানায় দায়েরকৃত ‘মিথ্যা ও হাস্যকর’ মামলা অবিলম্বে প্রত্যাহারসহ তিন দফা দাবিতে সিলেটে ধর্মঘট পালন করছে ট্যাংক লরি শ্রমিক ইউনিয়ন। শনিবার থেকে এ ধর্মঘট পালিত হচ্ছে। ট্যাংক লরি শ্রমিক ইউনিয়নের ধর্মঘটের ফলে সিলেটের পেট্রোল পাম্পগুলোতে তেল সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। এতে করে জ্বালানি তেল শূন্য হয়ে পড়ছে সিলেটের পেট্রোল পাম্পগুলো।

এদিকে তিন দফা দাবিতে সোমবার থেকে সিলেট বিভাগের জ্বালানি ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে ট্যাংক লরি শ্রমিক ইউনিয়ন।

তিন দফা দাবিগুলো হচ্ছে- গত ১১ এপ্রিল সিলেট মহানগরীর ২৫নং ওয়ার্ডস্থ বাইপাস সড়কের সাউথ সুরমা সিএনজি ফিলিং স্টেশনে সেলিম আহমদ ফলিকের নেতৃত্বে শ্রমিক নামধারীদের কয়েক দফা হামলা, ভাঙচুর ও নগদ প্রায় ৪ লাখ টাকা লুটপাটের ঘটনায় ১২ এপ্রিল দক্ষিণ সুরমা থানায় দায়েরকৃত মামলার (মামলা নং-১০/১৬) আসামীদের অবিলম্বে গ্রেফতার, দক্ষিণ সুরমা থানার অফিসার ইনচার্জ আতাউর রহমানকে দ্রুত অপসারণ ও শাস্তিমুলক বদলী এবং জনৈক শামসুল ইসলাম মানিক (জেলা পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের কোষাধ্যক্ষ) কর্তৃক বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম ডিলারস, ডিস্ট্রিবিউটারস, এজেন্টস্ এন্ড পেট্রোলপাম্প ওনার্স এসোসিয়েশনের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি জুবায়ের আহমদ চৌধুরীসহ অন্যদের বিরুদ্ধে দক্ষিণ সুরমা থানায় দায়েরকৃত মামলা প্রত্যাহার।

এই তিন দফা দাবি আজ রোববার মধ্য রাত ১২টার মধ্যে মানা না হলে সোমবার সকাল ৬টা থেকে সিলেট বিভাগে তেল-গ্যাস উত্তোলন, পরিবহন, মজুদ ও বিক্রিতে জ্বালানি ধর্মঘট পালন করার হুমকি দিয়েছে ট্যাংক লরি শ্রমিক ইউনিয়ন।

বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম ডিলারস, ডিস্ট্রিবিউটারস, এজেন্টস এন্ড পেট্রোলপাম্প ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সিলেট বিভাগীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক জুবায়ের আহমদ চৌধুরী চলমান ট্যাংক লরি শ্রমিক ইউনিয়নের ধর্মঘট এবং আগামীকাল থেকে জ্বালানি ধর্মঘটে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, আমাদের দাবিগুলো নিয়ে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সমাধানের জন্য যোগাযোগ করা হচ্ছে। সমঝোতা হলে ধর্মঘট প্রত্যাহার করা হবে।

এদিকে ট্যাংক লরি শ্রমিক ইউনিয়নের ধর্মঘটের ফলে সিলেটের পেট্রোল পাম্পগুলোতে জ্বালানি তেলের সংকট দেখা দিয়েছে। সরবরাহ বন্ধ থাকায় ইতিমধ্যেই সিলেট মহানগরীর সবকয়টি পাম্প তেলশূন্য হয়ে পড়েছে। অন্যদিকে দক্ষিণ সুরমার কয়েকটি পাম্পে জ্বালানি থাকলেও আজকের মধ্যে সরবরাহ স্বাভাবিক না হলে সেগুলো শূন্য হয়ে পড়বে।

নগরীর সুবহানিঘাট পেট্রোল পাম্পের স্বত্তাধিকারী আবদুল মতিন বলেন, তেল সরবরাহ বন্ধ থাকায় গত রাত ১০টা থেকে আমাদের পাম্প তেলশূন্য হয়ে পড়েছে।

জিন্দাবাজার পেট্রোল পাম্পের আবদুর রহিম জানান, শনিবার রাত ৮টা পর্যন্ত তারা তেল বিক্রি করতে পেরেছেন। এরপর পাম্প তেলশূন্য হয়ে পড়ে।

ওই পাম্পে তেল নিতে আসা মোটরসাইকেল আরোহী নাজমুল ইসলাম ক্ষুব্দ কন্ঠে বলেন, তেল সরবরাহ বন্ধ আমরা পড়েছি বিপাকে। এখন গাড়ি নিয়ে কোথায় যাবো!

সুবহানিঘাটস্থ এম এ হক পেট্রোল পাম্পের ব্যবস্থাপক নাজমুল বাশার জানান, গতকাল থেকে পাম্পে তেল নেই।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close