মুগ্ধতায় ভাঙল মিলনমেলা : শেষ হলো নাট্যমঞ্চ সিলেট’র ৭দিনব্যাপী নাট্য উৎসব

DSC_0118 copyইতিহাসের পাতা থেকে যেন মঞ্চে নেমে এসেছিলেন শেষ মুঘল সম্রাট আওরঙ্গজেব। সাথে ছিলেন রওশনারা, দারাশিকো, জাহানারা এবং স্বয়ং সম্রাট শাহজাহান। পিনপতন নীরবতায় হলভর্তি দর্শক যেন সাক্ষী হচ্ছিলেন সেই ঐতিহাসিক মুহূর্তগুলির। একসময় পরিসমাপ্তি ঘটে ইতিহাসের, হলভর্তি দর্শক চোখের কোণে পরিতৃপ্তি নিয়ে উল্লসিত হাততালিতে ভরে দেন পুরো অডিটোরিয়াম।
রবিবার সন্ধ্যায় ঢাকার স্বনামধন্য নাট্য সংগঠন ‘প্রাঙ্গণে মোর’ এর অনবদ্য পরিবেশনা, নাটক আওরঙ্গজেব’র প্রদর্শনীর সাথে সাথে শেষ হলো সিলেটের কবি নজরুল অডিটোরিয়ামে ‘নাট্যমঞ্চ সিলেট’ আয়োজিত ৭ দিনব্যাপী নাট্য উৎসব ২০১৫।
‘আমরা ভূলিনি অতীত, ছাড়িনি সে পথ, যে পথ রক্তে কেনা’ স্লোগানকে উপজীব্য করে গত ৭ ডিসেম্বর সোমবার শুরু হয় সাম্প্রতিক সময়ে সিলেটে আয়োজিত সবচেয়ে বড় এ নাট্য উৎসব।
গত সোমবার সন্ধ্যায় নাট্য উৎসব উদ্বোধন করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ও বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহা পরিচালক লিয়াকত আলী লাকী। ৭ দিনব্যাপী এ নাট্যোৎসবে নাটক পরিবেশন করে কলকাতার নাট্য সংগঠন রবীন্দ্রনগর নাট্যয়্যুদ কলকাতা, প্রাঙ্গণে মোর, শব্দ নাট্যচর্চা কেন্দ্র, শব্দ নাট্যচর্চা ঢাকা, নাট্যকেন্দ্র ঢাকা, নাট্যতীর্থ ঢাকা, মণিপুরী থিয়েটার এবং আয়োজক সংগঠন নাট্যমঞ্চ সিলেট। এ আয়োজনে সিলেটের ৩ কৃতি নাট্যজনকে নাট্য সম্মাননা প্রদান করা হয়। তারা হলেন নাট্যজন ভবতোষ রায় বর্মণ, নিজামউদ্দিন লস্কর ও ম. শমসের হোসেইন।
নাট্য উৎসবের সমাপনী বক্তব্যে প্রাঙ্গণে মোর নাটকের নির্দেশক ও নাট্যজন অনন্ত হীরা বলেন, আমরা আসলে যা বলতে চাই, তা নাটকের মধ্যে দিয়েই বলার চেষ্টা করি। আমরা নাটক করি হলভর্তি দর্শকের চোখের কোনে একবিন্দু ভাললাগা দেখতে। যা প্রতিবারই সিলেটের দর্শকের মধ্যে দেখতে পাই। আর এ কারণেই বারবার সিলেটের দর্শকদের কাছে ফিরে আসতে চাই। এ আয়োজনের জন্য আয়োজন সংগঠন নাট্যমঞ্চ সিলেটকে ধন্যবাদ, সেই সাথে ধন্যবাদ জানাই সম্মিলিত নাট্য পরিষদ সিলেটসহ সিলেটের সকল নাট্য সংগঠন ও নাট্যকর্মীদের।
৭দিন ব্যাপী নাট্য উৎসবের সমাপনী অনুষ্ঠানে আয়োজক সংগঠন নাট্যমঞ্চ সিলেট’র সভাপতি রজত কান্তি গুপ্ত’র সভাপতিত্বে ও নাট্যকর্মী জান্নাতুন নাজনীন আশা’র পরিচালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিলেট মহানগর পুলিশের কমিশনার কামরুল আহসান। এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশনের সভাপতিম-লীর সদস্য অনিরুদ্ধ ধর শান্তনু এবং সম্মিলিত নাট্য পরিষদ সিলেটের প্রধান পরিচালক মুক্তিযোদ্ধা নিজামউদ্দিন লস্কর।
সমাপনী দিনে প্রদর্শিত নাটকের নির্দেশক নাট্যজন অনন্ত হীরা ও নাট্যশিল্পী নূনা আফরোজকে উৎসব স্মারক ও উত্তরীয় তুলে দেন সম্মিলিত নাট্য পরিষদ সিলেটের পরিচালক রওশন আরা মনির রুনা, সভাপতি অনুপ কুমার দেব ও সহ-সভাপতি খোয়াজ রহিম সবুজ।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close