পঙ্গুত্বের শঙ্কায় আরিফ, মেডিকেল বোর্ড গঠন

arif at Hobigonj Court2সুরমা টাইমস ডেস্কঃ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন কারান্তরীন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সাময়িক বরখাস্তকৃত মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর অবস্থার আরো অবনতি হয়েছে। আরিফের পঙ্গুত্বের শঙ্কা দেখা দিয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।
জানা যায়, ঢাকা মেডিকেল জকলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিএনপি নেতা আরিফুল হক চৌধুরীর জন্য গঠন করা হয়েছে জরুরী মেডিকেল বোর্ড। তাকে রাখা হয়েছে সার্বক্ষনিক পর্যবেক্ষণে।
সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহএসএম কিবরিয়া হত্যা মামলার চার্জশীটভূক্ত আসামী হিসেবে আরিফুল হক বর্তমানে কারাবন্দি রয়েছেন। কারবান্দি অবস্থায় অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
মেডিকেল বোর্ড সূত্রে জানা যায়, আগস্ট মাসের প্রথম সপ্তাহে তার এমআরআই করার পর মাথা ও মেরুদন্ডের মাঝামাঝি স্থানে কয়েকটি ক্রেক ইনজুরি ধরা পড়ে। ৪, ৫ ও ৬নং কডে ক্রেক ছাড়াও আরিফের রয়েছে ডায়াবেটিস ও উচ্চ রক্তচাপ।
মেডিকেল বোর্ডের রিপোর্টে আরও উল্লেখ করা হয়েছে, ‘আরিফুল হক চৌধুরীর মেরুদন্ডের জোড়ার জায়গাটি ভাঙ্গা। সার্ভাইকাল কোডের উপর বড় ধরনের চাপ রয়েছে। যদি হঠাৎ চাপ পড়ে তাহলে পঙ্গুত্ব বরণ করতে হতে পারে।’
বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এমআরআই করার পর আরিফের যে সমস্যা ধরা পড়েছে তা ঝুঁকিপূর্ণ। এমন অসুস্থতা থেকে স্থায়ীভাবে পঙ্গুত্ব এমনকি জীবনের ঝুঁকিও হতে পারে। এমতাবস্থায় উচ্চ আদালতের নির্দেশে আরিফের চিকিৎসায় গঠন করা হয়েছে একটি মেডিকেল বোর্ড।
এই বোর্ডের প্রধান হিসেবে আছেন ঢাকা মেডিকেল কলেজের নিউরো সার্জারী বিভাগের প্রধান প্রফেসর ডা: এহসান মাহমুদ। এই বোর্ডে এই বোর্ডে আরো আছেন- প্রফেসর ডা: অদুদ চৌধুরী, প্রফেসর ডা: জিল্লুর রহমান ও প্রফেসর ডা: আজিজুল কাহার।
উল্লেখ্য, গতবছর মেয়র আরিফ হৃদরোগে আক্রান্ত হলে তার শরীরে রিং পড়ানো হয়। এর আগে ২০০০ সালে ঢাকায় সড়ক দূর্ঘটনায় গুরুতর আহত হন। ওই সময় তিনি ঘাড়ে প্রচন্ড আঘাতপ্রাপ্ত হন। সম্প্রতি এমআরআই রিপোর্টে পুনরায় মাথা ও মেরুদন্ডের মাঝামাঝি স্থানে কয়েকটি ক্রেক ইনজুরি ধরা পড়ে।
আরিফ পত্নী শ্যামা হক চৌধুরী বলেন, মেয়র আরিফের অবস্থা গুরুতর। ঢাকা মেডিকেলের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা বোর্ড গঠন করে চিকিৎসা চলছে। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন তাঁর স্থায়ীভাবে পঙ্গুত্ব এমনকি জীবনের ঝুঁকিও হতে পারে। আরিফুল হক চৌধুরীর সুস্থতার জন্য তিনি সিলেট নগরবাসীসহ দেশবাসীর কাছে দোয়া কামনা করেন।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close