শান্তি ও সম্প্রীতির শহরে সংঘাত নয়, শান্তি চাই

সৈয়দ তাওসিফ মোনাওয়ার, সুনামগঞ্জ: দেশের চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে জনগণ যখন উৎকণ্ঠায়, সুনামগঞ্জবাসীর জন্য তখন শান্তির বার্তা হয়ে অনুষ্ঠিত হল শান্তির মিছিল। শান্তি ও সম্প্রীতির শহরে সংঘাত নয়, শান্তি চাই- এ শ্লোগান নিয়ে সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আয়ূব বখত জগলুলের আহ্বানে সাড়া দিয়ে রাস্তায় নামলেন হাজারো মানুষ। সবার হাতে ছিল শান্তির প্রতীক সাদা পতাকা, কপালে ব্যাজে লেখা ছিল শান্তি চাই।
বুধবার বিকেল ৩টায় সুনামগঞ্জ পৌরসভা চত্বরে শান্তিকামী নাগরিকদের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত হয় শান্তির সমাবেশ।
বিভিন্ন এলাকা থেকে শান্তির জন্য শ্লোগান দিতে দিতে মিছিল নিয়ে এসে পৌরসভার সামনে এসে জড়ো হোন অনেকে। অংশ নেন বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। এসময় পৌরসভার মুক্তমঞ্চে দেশাত্ববোধক গান চলছিল। বিকেল সাড়ে ৩টায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আয়ূব বখত জগলুল।
তিনি বলেন, সুনামগঞ্জের ইতিহাস ও ঐতিহ্য সম্প্রীতির ঐতিহ্য। এ শহরের মানুষদের সবাই একই পরিবারের সদস্যের মত। দেশের রাজনৈতিক উত্তাপের কারণে অন্য শহরে হয়তো সংঘাত হয়, কিন্তু সুনামগঞ্জ সবসময়ই এ সংঘাতের রাজনীতি থেকে মুক্ত ছিল। কেন জানি না, এখন এই শহরেও গাড়ি পোড়ানো হচ্ছে, দোকানপাট ভাঙচুর হচ্ছে, মানুষের জানমালের ক্ষয়ক্ষতি হচ্ছে।
তিনি আরো বলেন, আমি নিজেও রাজনীতি করি। আমাদের সময়ের রাজনীতিতে কোন হানাহানি ছিল না, মারামারি ছিলনা। আমরা রাস্তায় মিছিল-মিটিং করেছি, আন্দোলন করেছি, কিন্তু কখনো মানুষের ক্ষতি চাইনি। অথচ দেশে এখন রাজনীতির নামে হানাহানি হয়। আমরা সুনামগঞ্জে শান্তি চাই। সুনামগঞ্জ হবে শান্তির শহর।
এসময় সমস্বরে শান্তি চাই বলে চিৎকার করে আয়ূব বখত জগলুলের সাথে একাÍতা প্রকাশ করেন সমাবেশে অংশ নেয়া হাজারো মানুষ।পরে আয়ূব বখত জগলুল বলেন, সন্ত্রাসীদের রুখতে হবে। এ দায়িত্ব আমাদের সবার। বক্তব্যের পর তিনি শান্তির প্রতীক হিসেবে পায়রা উড়িয়ে শান্তির আন্দোলনের শুভসূচনা ঘোষণা করেন। মেয়র আয়ূব বখত জগলুলের বক্তব্য শেষে পৌরসভার সামন থেকে বের হয় শান্তির মিছিল। এসময় সবাই শান্তির পক্ষে শ্লোগান দেন।
মিছিলটি শহরের ট্রাফিক পয়েন্ট ঘুরে শহরের কয়েকটি প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। মিছিলে মানুষের স্বতঃস্ফ’র্ত অংশগ্রহণ ছিল লক্ষনীয়। পরে, মিছিলটি পুনরায় পৌরচত্বরে এসে মিলিত হয়। এসময় পৌর মেয়র সমাপণী বক্তব্য রাখেন ও মিছিলের সমাপ্তি ঘোষণা করেন। মিছিল শেষে বাড়ি ফিরে যাওয়ার পথে মিছিলে অংশ নেয়া সাধারণ মানুষজনের চোখে-মুখে ছিল দীপ্তি, শান্ত সুনামগঞ্জকে ফিরে পাবার প্রত্যয়।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close