কোম্পানীগঞ্জে মদ, জুয়া ও অসামাজিক কার্যকলাপ থানা ঘেরাও

কোম্পানগিঞ্জ উপজেলার ঢালারপার হিমালয় যুব ক্লাব ও স্থানীয় গণ্যমান্যব্যক্তিবর্গ এবং স্থানীয় স্কুল কলেজের
ছাত্র/ছাত্রীর পক্ষ থেকে স্মারক লিপি প্রদান ও বিক্ষোভ মিছিল সমাবেশে অনুষ্ঠিত

মদ জুয়া সহ বিভিন্ন অসামাজিক কার্যকলাপ ও পুলিশের নানাবিধ অপকর্মের বিরুদ্ধে ফুসে উঠেছে কোম্পানীগঞ্জে স্থানীয় জনতা। গতকাল বেলা ১২টায় কোম্পানগিঞ্জ উপজেলার ঢালারপার হিমালয় যুব ক্লাব ও স্থানীয় গণ্যমান্যব্যক্তিবর্গ এবং স্থানীয় স্কুল কলেজের ছাত্র/ছাত্রীসহ প্রায় ৫শতাধিক বিক্ষুবদ্ধ জনতা মদ, জুয়া আসর বন্ধ ও এ সকল অপকর্মের হুতা কোম্পানীগঞ্জ থানা পুলিশের ক্যাশিয়ার নামধারী তাজুল ইসলাম (কং ১৪৫) এর অপসারণ ও স্থানীয় ঢালারপাড় গ্রামের মাদক বিক্রেতা জুয়ার আসরের পরিচালক জাকির হোসেন কে গ্রেফতারের দাবীতে থানা গেড়াও করে এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে ওসির বরাবরে স্মারকলিপি দিয়েছে এলাকাবাসী। 

স্মারকলিপি প্রদানের পূর্বে কোম্পানীগঞ্জ থানার সামনে বিক্ষুবদ্ধ জনতার পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবু হাফি খন্দকার, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আবু বক্কর, পূর্ব ইসলামপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মল্লুক হোসেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই ফকির, আব্দুল মুতালিব, আব্দুল মতিন, খালেক মিয়া, বিশিষ্ট মুরব্বী আমজদ আলী, রাজি উদ্দিন খন্দকার, ফয়জুল হক খন্দকার, হান্নান খন্দকার, ঢালার পাড় হিমালয় ক্লাবের সভাপতি মোঃ ইসমাইল আলী, সাধারণ সম্পাদক হোসেন আলী, ছাত্রনেতা শামিম চৌধুরী, মাইন উদ্দিন খন্দকার, হাফিজ মাওলানা সাদেক আহমদ, মোজাহিদ হোসেন, লিটন চৌধুরী মানিক, জামাল হোসেন, আব্দুর রহমান প্রমুখ।
বিক্ষোভ পরবর্তী সমাবেশে বক্তারা বলেন, ঢালারপাড় সহ কোম্পাবনীগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে মদ ও জুয়া আসর সহ বিভিন্ন অসামাজিক কার্যকলাপ আসংকাহারে বৃদ্ধি পেয়েছে। যার ফলে উপজেলার বিভিন্নস্থানে চুরি, ডাকাতি, চিন্তাই বেড়ে গেছে। ফলে এলাকার জনগন জিম্মি হয়ে পড়েছে তাদের কাছে। স্থানীয় যুব সমাজ বিপদগ্রামী হচ্ছে।
বক্তারা আরও বলেন, উপজেলাবিধি মদ, জুয়ার আসর সহ বিভিন্ন অসামাজিক কার্যকলাপ বৃদ্ধি পাওয়ার পেছনে কোম্পানীগঞ্জ থানার ক্যাশিয়ার নামধারী পুলিশ কংঃ তাজুল ইসলামের হাত রয়েছে। তাজুল ইসলামের ইন্দনে উপজেলাবিধি মদ, জুয়ার আসর, হিরইণ ও ইয়াবা সেবন বেড়েছে। থানা পুলিশের নাম ভাঙ্গিয়ে প্রাতি মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে পুলিশ ক্যাশিয়ার তাজুল ইসলাম।
সমাবেশে বক্তারা বলেন, আগামী ৭২ ঘন্টার মধ্যে তাজুল ইসলামের অপসারণ ও তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী জানিয়েছেন পুলিশের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের নিকট। বিক্ষোভ সমাবেশ শেষে কোম্পানীগঞ্জহ থানার ওসি (তদন্ত) শফিউল আজমের কাছে স্মারক লিপি প্রদান করেন। ওসি তদন্ত শফিউল আজম স্মারকলিপি গ্রহণ শেষে বিক্ষুবদ্ধ জনতার উদ্যোশে এ ব্যাপারে কার্যক্রর ব্যবস্থাগ গ্রহনের আশসাস দেন। পরে বিক্ষোভ মিছিলটি উপজেলা সদরে প্রদক্ষিন শেষে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বরাবরে পৃথক আরেকটি স্মারকলিপি প্রদান করেন। বিজ্ঞপ্তি

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close