পুলিশও অপরাধ করলে কোনো ছাড় নেই : প্রশিক্ষণ কর্মসূচির উদ্বোধনে ডিআইজি

DIG Mizanur Rahmanস্টাফ রিপোর্টার: সিলেট রেঞ্জের ডিআইজি মো. মিজানুর রহমান (পিপিএম) বলেছেন, ‘দেশের প্রতিটি বিভাগেই পুলিশের ট্রেনিং সেন্টার আছে। শুধু সিলেটে নেই। এখানে ট্রেনিং সেন্টার দরকার। এতে এখানকার নবাগত পুলিশ সদস্যরা এখানেই প্রশিক্ষণ নিতে পারবে। আশার কথা হচ্ছে, সিলেটের মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে পুলিশের ট্রেনিং সেন্টারের জন্য কাজ শুরু হয়েছে। সেখানে জমি দেখা হচ্ছে।’
ডিআইজি নতুন পুলিশ সদস্যদের সতর্ক করে বলেন, ‘পুলিশেও শাস্তির ব্যবস্থা আছে। সিলেটে শিশু সাঈদ খুনের ঘটনায় এক পুলিশ সদস্যের মৃত্যুদ- হয়েছে। পুলিশেও অপরাধ করলে কোনো ছাড় নেই। তাই সততা, আন্তরিকতা ও সুন্দর আচরণ দিয়ে পুলিশকে জনগণের সেবা করতে হবে।’
তিনি গতকাল বুধবার সকালে দক্ষিণ সুরমার লালাবাজারস্থ আরআরএফ রেঞ্জ প্রশিক্ষণ সেন্টারে ৩৫০ পুলিশ সদস্যদের ছয় মাস ব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মসূচীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ তথ্য জানান।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডিআইজি বলেন,‘ একজন পুলিশ যোগদানের ৬ বছর পর জাতিসংঘে মিশনে যাওয়ার যোগ্যতা অর্জন করেন। জাতিসংঘে যেতে একজন পুলিশকে চারটি বিষয় ভালো জানতে হবে, ইংরেজি ভাষা, কম্পিউটার, ফায়ারি ও ড্রাইভিং। তাই এখন নতুন পুলিশ সদস্যদের কম্পিউটার জানতে হবে।’ তিনি প্রশিক্ষণার্থীদের উদ্দেশে বলেন,‘ পুলিশে কনস্টেবল থেকে আইজি পর্যন্ত ১৩ টি পদোন্নতির ধাপ আছে। ধৈর্য ও কষ্ট সহ্য করে এ ধাপের দিকে যেতে হবে। দেশের সেবার জন্য সবসময় প্রস্তুত থাকতে হবে। স্বাধীনতা যুদ্ধে রাজারবাগ পুলিশ ক্যাম্পে পুলিশরাই প্রথম প্রতিরোধ শুরু করেছিল। তাই দেশের বিপর্যয়ে পুলিশ ত্যাগ স্বীকারে প্রস্তুত থাকা প্রয়োজন।’
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সিলেটের পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা (পিপিএম)। পুলিশ সুপার বলেন,‘ আন্তরিকভাবে প্রশিক্ষণ নিলে খাঁটি অফিসার হিসেবে বের হবেন। কেউ যদি শাস্তি না পান, তবে তিনি অনেক দূর যেতে পারবেন। জনগণের নিরাপত্তা ও অপরাধীদের দমন করাই পুলিশের কাজ। জনগণের টাকায় পুলিশের বেতন হয়। তাই তাদের আইনি সেবা দিতে হবে।’
অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সিলেট জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মিডিয়া) সুজ্ঞান চাকমা, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অনোয়ারুল হক, আরআরএফ সিলেটের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার কাজী সোয়াইব। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আরআরএফ রেঞ্জের (প্রশিক্ষণ) কমান্ডেন্ট মাহমুদুর রহমান। অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন আরআরএফ মসজিদের ইমাম মাওলানা সিরাজুল ইসলাম।
প্রসঙ্গত, সিলেটে পুলিশ সদস্যদের এই প্রশিক্ষণে ৮৬ জন মুক্তিযোদ্ধা কোটায় প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close