‘দুষ্ট’ চক্রের হাত থেকে বাঁচতে চায় তানিয়া

Tania Press Confarance Pic (1)নজস্ব প্রতিবেদক : ভালবেসে পাঁচ বছর আগে স্বপ্নের ঘর বেধেঁছিল ফারজানা ইয়াসমিন তানিয়া। কিন্তু বিয়ের পর কিছুদিন লোক দেখানো সুখেই কাটে দিন। এর মধ্যে তানিয়ার ঘর আলো করে আসে তাসনিম আহমেদ নামে একটি মেয়ে সন্তান। তার বয়ষ এখন তিন বছর। কিন্তু এর পরই আসে বিপত্তি। ধীরে ধীরে অশান্তি দেখা দেয় সংসারে। ইতিমধ্যে পর নারীতে আসক্ত হয়ে পড়ে তানিয়ার স্বামী। ছিনতাই মামলায় জেলেও যেতে হয় তাকে। এমনকি যৌতুকের দাবীতে তানিয়াকে পতিতাবৃত্তি করতেও বলে স্বামী ও তার পরিবার। এতে রাজি না হওয়ায় তানিয়াকে এখন হত্যার হুমকি দিচ্ছে তার স্বামী। আর নিজের ইচ্ছায় বিয়ে করায় এখন পরিবারের কাছেও যেতে পারেছেননা তিনি। এনিয়ে চরম অনিশ্চয়তায় দিন কাটছে তানিয়ার।
বৃহষ্পতিবার সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এমন অভিযোগ করেন নগরীর খাসদবীর আবাসিক এলাকার বন্ধন এফ ১০ নং বাসার সায়েল আহমদ নয়নের স্ত্রী ফারজানা ইয়াসমিন তানিয়া।
সংবাদ সম্মেলনে ফারজানা ইয়াসমিন তানিয়া বলেন, ভালবেসে পাঁচ বছর আগে সুখের স্বপ্ন দেখে নগরীর খাসদবীর আবাসিক এলাকার বন্ধন এফ ১০ নং বাসার হেলাল আহমদের ছেলে সায়েল আহমদ নয়নের সাথে ঘর বেধেঁছিলাম। কিন্তু বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই তিনি পরকিয়ায় আসক্ত হয়ে পড়েন। অন্য মেয়ের সাথে অন্তরঙ্গ মূহুর্তে হাতে নাতে ধরা খাওয়ার পর পুনরায় এসব কাজ করবেননা মর্মে তিনি ষ্টাম্পে লিখিত অঙ্গিকারনামাও দেন। ছিনতাই মামলায় গ্রেফতার হয়ে কারাগারেও যেতে হয় তাকে। কিন্তু এর পরও তিনি তার অভ্যাস পরিবর্তন করতে পারেন নি।
তানিয়া আরো বলেন, জেলে থাকাকালিন সময়ে নয়নের বোন আমার কাছে টাকা দাবী করেন। আমি কিছু টাকাও দেই। কিন্তু এতেও শান্ত হয়নি তারা। তারা বার বার আমাকে টাকার জন্য চাপ দিতে থাকে। টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে আমার স্বামী ও তার বোন আমাকে পতিতাবৃত্তি করতে বলে। এমনকি একদিন একটি ছেলেকে আমার কক্ষে নিয়ে তার সাথে আমাকে দৈহিক মিলনও করতে বলে। এক পর্যায়ে নিজেকে রক্ষা করতে শিশু কন্যাটিকে নিয়ে আমি আমার এক বান্ধবির বাসায় চলে যাই। কিন্তু তার পরও নয়ন আমার পিছু ছাড়েনি। সে আমাকে অব্যাহত ভাবে হুমকি ধমকি দিচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে এসএমপির বিমানবন্দর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিলেও পুলিশ রহস্যজনক কারনে অভিযোগটি এজহার হিসেবে নেয়নি। এমতাবস্থায় আমি চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছি। আর ভালবেসে পরিবারের অসম্মতিতে বিয়ে করায় এখন আমি আমার মা বাবার কাছেও যেতে পারছিনা। এনিয়ে চরম অনিশ্চয়তার মধ্যে দিনাতিপাত করছি।
তানিয়া এই দুষ্ট চক্রের হাত তেকে রক্ষা পেতে তার অভিযোগটি এজহার হিসেবে গন্য করে প্রতারক স্বামী সায়েল আহমদ নয়নকে গ্রেফতার করার জন্য পুলিশ সহ প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি বিনিত অনুরোধ জানান।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close