তামিমের চেয়ে এগিয়ে ইমরুল

imrul_bat_bg_434813967সুরমা টাইমস ডেস্ক: শুরুটা ধীরে করলেও এ মুহূর্তে বেশ ভালো গতিতে টাইগারদের স্কোরবোর্ডে রান জমা হচ্ছে। ড্যাসিং ওপেনার তামিম ইকবালের থেকে রানের গতি বাড়াতে আগ্রসী ভূমিকা রাখছেন আরেক ওপেনার ইমরুল কায়েস। ইতোমধ্যেই তিনটি চারের পাশাপাশি গত ম্যাচের সর্বোচ্চ স্কোরার ইমরুল তিনটি ছক্কা হাঁকিয়ে অপরাজিত।এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ১৩ ওভার শেষে টাইগারদের সংগ্রহ বিনা উইকেটে ৬৩ রান। তামিম ২৪ আর ইমরুল ৩৬ রানে ব্যাট করছেন।তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে টস জিতে আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশ দলপতি মাশরাফি বিন মর্তুজা। মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে টানা পঞ্চম সিরিজ জয়ী বাংলাদেশের হয়ে ব্যাটিং উদ্বোধন করতে নামেন ১৫৩ ওয়ানডে খেলা তামিম ইকবাল এবং ৫৮ ওয়ানডে ম্যাচ খেলা ইমরুল কায়েস।সিরিজের আগে প্রস্তুতি ম্যাচে জাতীয় দলের আদলে গড়া বিসিবি একাদশকে বড় ব্যবধানে হারিয়ে সফর শুরু করে জিম্বাবুয়ে। তবে, প্রথম ম্যাচে সফরকারী দলটিকে ১৪৫ রানের বিশাল ব্যবধানে হারায় টাইগাররা। সকল শঙ্কা দূর করে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ৫৮ রানের জয় পায় মাশরাফি বাহিনী। আর তাতেই ২০তম সিরিজ জয়ের পাশাপাশি দেশের মাটিতে টানা পঞ্চম সিরিজ নিজেদের কাছে রেখে দেয় বাংলাদেশ।এ ম্যাচ জিততে পারলে টানা দ্বিতীয়বার জিম্বাবুয়েকে হোয়াইটওয়াশ করবে বাংলাদেশ। গত বছরের নভেম্বর-ডিসেম্বরে ৫-০ তে সিরিজ হেরেছিল সফরকারীরা। মাঝে দেশের মাটিতে গত তিনটি সিরিজে পাকিস্তান (৩-০), ভারত (২-১) ও  দক্ষিণ আফ্রিকাকে (২-১) হারায় মাশরাফি-তামিম-মুশফিক-সাকিবরা। এর আগে ২০০৬ সালে জিম্বাবুয়েকে টানা দু’বার হোয়াইটওয়াশ করার কীর্তি গড়েছিল টাইগাররা।একদিনের ক্রিকেটে বাংলাদেশ ও জিম্বাবুয়ে এ ম্যাচের আগে পর্যন্ত ৬৬ বার মুখোমুখি হয়। যার মধ্যে ৩৮ ম্যাচে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ; হেরেছে ২৮ ম্যাচে। দেশের মাটিতে ৩৫ ম্যাচে বাংলাদেশের জয় ২৪টিতে, হার ১১টি ম্যাচে। আজকের ম্যাচে জিম্বাবুয়েকে হারালে চতুর্থবারের মতো একই প্রতিপক্ষকে হোয়াইটওয়াশ করার কীর্তি গড়বে বাংলাদেশ।ওয়ানডে সিরিজ শেষে ১৩ ও ১৫ নভেম্বর দুই ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে দু’দল। দিবারাত্রির দু’টি ম্যাচই অনুষ্ঠিত হবে শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে। খেলা শুরু হবে বিকেল ৫টায়।বাংলাদেশ দল: মাশরাফি বিন মর্তুজা (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, ইমরুল কায়েস, লিটন কুমার দাস, সাব্বির রহমান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মুশফিকুর রহিম, নাসির হোসেন, আরাফাত সানি, মুস্তাফিজুর রহমান ও আল আমিন।জিম্বাবুয়ে দল: এলটন চিগুম্বুরা (অধিনায়ক), সিকান্দার রাজা, রেগিস চাকাভা, চামু চিবাবা, ক্রেইগ আরভিন, ম্যালকম ওয়ালার, গ্রায়েম ক্রেমার, শেন উইলিয়ামস, লুক জঙ্গো, টিনাশে পানিয়াঙ্গারা ও মুজারাবানি।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close