বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে দেশকে নিশ্চিহ্ন করার ষড়যন্ত্র ছিলো : আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী

anwaruzzaman chowdhuryসুরমা টাইমস ডেস্কঃ যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী বলেছেন, বঙ্গবন্ধু ছিলেন এক অনন্য নেতা। সহজ সরল সাদামাটা অথচ দৃঢ়চেতা এক মানুষ। তাঁর নেতৃত্বে নয় মাসের রক্তক্ষয়ী সংগ্রামের মাধ্যমে বিজয়ের পর যুদ্ধ বিধ্বস্ত দেশকে বির্নিমাণের জন্য তিনি যখন দিনরাত কাজ করছেন; ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে সবুজ বিপ্লবের ডাক দিয়েছেন; ঠিক সেই মুহূর্তে স্বাধীনতা বিরোধী জাতীয় ও আর্ন্তজাতিক চক্রের যোগ সাজসে তাঁকে হত্যা করা হয়। এ দেশের বিপথগামী কিছু সংখ্যক সেনা সদস্য ১৫ আগস্ট স্বপরিবারে বঙ্গবন্ধুকে যেভাবে হত্যা করে তা বিশ্ব ইতিহাসে বিরল। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যা নিছক একজন ব্যক্তিকে হত্যা ছিল না। এটি ছিল একটি দেশকে নিশ্চিহ্ন করার ষড়যন্ত্র। বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনি যাঁরা যুক্তরাষ্ট্র, কানাডাসহ বিভিন্ন দেশে অবস্থান করছে তাদের দেশে এনে বঙ্গবন্ধু হত্যার রায় কার্যকর করার আহবান জানান তিনি। তিনি আরো বলেন জাতীয় শোক দিবসের শোককে শক্তিতে পরিণত করতে হবে। ঐক্যবদ্ধভাবে সকল ষড়যন্ত্রকে মোকাবিলা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে আরো শক্তিশালী করতে হবে। গোয়ালাবাজার ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ আয়োজিত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর ৪০তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা ও দোয়া মহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
গোয়ালাবাজারে বৃহস্পতিবার বিকেলে গোয়ালাবাজার ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব লাল মাহমুদের সভাপতিত্বে ও সাবেক শ্রম বিষয়ক সম্পাদক আব্দুর রব গেদা মিয়ার পরিচালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সিলেট মহানগর আওয়ামীলীগের শিক্ষা ও মানব সম্পাদ বিষয়ক সম্পাদক কাউন্সিলর আজাদুর রহমান আজাদ, জেলা আওয়ামীলীগের যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক এডভোকেট রনজিত সরকার, ওসমানী নগর আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা কবির উদ্দিন আহমদ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো: আবদাল মিয়া, সিলেট জেলা যুবলীগের সভাপতি শামীম আহমদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল মতিন, ওমর পুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো: ফারুক মিয়া, বুরুংগা ইউপি চেয়ারম্যান মকদ্দুছ আলী, গোয়ালাবাজার ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান হারুন মিয়া, জেলা যুবলীগ নেতা গোলাম মৌলা চৌধুরী, সিতার মিয়া, শাহীন আহমদ, সাজলু লস্কর, ওসমানীনগর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আনা মিয়া, নবীগঞ্জ পৌর আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ফয়েজ আমিন রাসেল, লন্ডন মহানগর যুবলীগের সহ সভাপতি আজহার আলী, সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি পংকজ পুরকায়স্ত, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রায়হান আহমদ, মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আলিম তুষার, ইউসুফ চৌধুরী, মিজানুর রহমান, নিপ্পন সুএধর, কাওছার আহমদ, আবু বক্কর, রুহেল আহমদ, জাবের আহমদ, সামছুল ইসলাম, শাহীন আহমদ, শ্যামল আহমদ, রায়হান আহমদ প্রমুখ। অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন হাবিবুর রহমান শেফু। গীতা পাঠ করেন শিপন সুত্রধর।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close