মিলানে বিএনপির বিশাল বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত

milan bnp news picনাজমুল হোসেন,মিলান থেকে: বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব সালাউদ্দিন আহমেদ সহ ২০ দলীয় জোটের সকল নেতৃবৃন্দের নিঃশর্তে মুক্তি, গুম-খুন-হত্যা-মিথ্যা মামলা, ক্রসফায়ার এবং অবিলম্বে নির্দলীয়, নিরপক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে ইতালির মিলানে মিলান বিএনপির আয়োজনে বিশাল বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার বিকাল ৩ টায় পিয়াচ্চা লরেত্ব থেকে বিশাল বিক্ষোভ মিছিল শুরু করে শহর প্রদক্ষিন করে মিলান সেন্ট্রাল স্টেশন এসে সমাপ্ত হয়। মিছিল শেষে মিলান বিএনপির সভাপতি খান এমদাদ হোসেনের সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক হুসাইন মোহাম্মদ মনির এর পরিচালনায় প্রতিবাদ সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক মহিদুর রহমান মুহিদ। সভায় বক্তব্য রাখেন মিলান বিএনপির সাবেক সভাপতি হাবিবুর রহমান আইয়ুব,সিনিয়র সহ সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মামুন,সাংগঠনিক সম্পাদক হারুন উর রশিদ,ব্রেসিয়া বিএনপির সভাপতি হালিম খান,বেরগামো বিএনপির সভাপতি শফিকুল ইসলাম তুহিন,বোলোনিয়া বিএনপির আহবায়ক রফিকুল ইসলাম আলম,ভেনিস বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান বাবু,ফিরেনস বিএনপির সভাপতি ওমর ফারুক,তোরিনো বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কামরুল ইসলাম,ব্রেসিয়া বিএনপির আবুল কালাম প্রিন্স,ইউরোপ বিএনপি নেতা সুমন চোধুরী,সেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান,যুবদলের সভাপতি তোফাজ্জল হোসেন তপু,মহিলা দলের সভাপতি পলি,সাধারণ সম্পাদক হাসি আলম সহ মিলান বিএনপি ,সেচ্ছেসেবক দল.শ্রমিক দল.যুবদল ও মহিলাদলের নেতৃবৃন্দরা।
বক্তারা বলেন,দেশের একজন সুনাগরিক, রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব ও সাবেক আমলার যদি জীবনের নিরাপত্তা না থাকে এবং তা যদি আবার আইন শৃংখলা বাহিনী কর্তৃক উঠিয়ে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠে তা হলে দেশের সাধারণ মানুষ কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে। সাধারণ মানুষের বুঝতে অসুবিধা হচ্ছে না কারা এই সব অপকর্মের সাথে জড়িত। বক্তারা আরো বলেন সারাদেশে পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করছে ছাত্রলীগ আর দোষ চাপানো হচ্ছে বিএনপির উপর। জনগণের কাছে আজ স্পষ্ট নোংরা রাজনীতির ধারক ছাত্রলীগ জঙ্গি কর্মকাণ্ড করে ধরা পড়ার পরও এর দায়ভার চাপানো হচ্ছে বেগম খালেদা জিয়াসহ ২০ দলীয় জোটের উপর । জনগণের নিরাপত্তার কথা বলে সরকারদলীয় সন্ত্রাসীরা জনগণকে পুড়িয়ে মারছে। প্রতিবাদ করার সাহস পাচ্ছে না কেউ। প্রতিবাদ করলেই গুম খুনের ঘটনা ঘটাচ্ছে। সরকারকে একদিন এ অপকর্মের জন্য বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হবে। কোনোভাবেই ছাড় দেয়া হবে না ।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close