সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপির গণমিছিল সমাবেশ

ভোটাধিকার হরন ও গণতন্ত্র হত্যার দায়ে অচিরেই আওয়ামীলীগ ইতিহাসের আস্থাকুড়ে নিক্ষিপ্ত হবে
———–সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপি

BNP Sylhet City & District Micil Photo -05-03-15সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপি নেতৃবৃন্দ বলেছেন, মানুষের ভোটাধিকার হরন ও গনতন্ত্রকে হত্যা করে আওয়ামীলীগ ইতিহাসের ন্যাক্কাজনক কালো অধ্যায়ের সুচনা করেছে। এর দায়ে অচিরেই বাকশালী আওয়ামীলীগ ইতিহাসের আস্থা কুড়ে নিক্ষিপ্ত হবে। সংবিধান, আইন ও মানবাধিকার লংঘনের দায়ে তাদেরকে অবশ্যই জনতার আদালতের কাঠগড়ায় দাড়াতে হবে। সেই দিন আর বেশী দুরে নয়। দেশপ্রেমিক জনতার গণজাগরণ খুব স্বল্প সময়ের মধ্যে গণবিষ্ফোরনে রুপ লাভ করবে। তখন ফ্যাসিবাদের প্রেতাত্মারা পালানোর রাস্তাও খুজে পাবেনা। জনতার দাবী উপেক্ষা করে বন্দুকের নলে জোরে ক্ষমতায় থাকার স্বপ্ন দুঃস্বপ্নে পরিনত হবে। ৩ বারের সাবেক সফল প্রধানমন্ত্রী বিএনপি চেয়ারপার্সন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করে অবৈধ সরকার আদালতকেও তাদের হীন স্বার্থে ব্যাবহারের নিকৃষ্ঠ নজির স্থাপন করেছে। দেশনেত্রীকে গ্রেফতারের ষড়যন্ত্র করা হলে সারাদেশে আগুন জ্বলবে। আর জনতার সেই ক্ষোভের আগুনে আওয়ামী অবৈধ মসনদ পুড়ে ছাই হয়ে যাবে। আগুন নিয়ে খেলা বন্ধ করুন। সময় থাকতে তত্ত্বাবধায়ক সরকার পুনর্বহাল করে পদত্যাগ করুন। জাতিকে সংঘাতের হাত থেকে রেহাই দিন। অন্যথায় ইতিহাসের লজ্জাজনক পরিনতির জন্য প্রস্তুত থাকুন।
গতকাল বৃহস্পতিবার বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট কেন্দ্র ঘোষিত দেশব্যাপী গণমিছিল কর্মসুচীর অংশ হিসেবে ও হরতাল-অবারোধের সমর্থনে নগরীর চৗহাট্রা এলাকায় মিছিল বের করে সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপি। মিছিলটি নগরীর আলিয়া মাদ্রাসা মাঠের পশ্চিম গেইট থেকে শুরু হয়ে চৌহাট্রা সংলগ্ন সদর হাসপাতালের সম্মুখে এসে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মধ্য দিয়ে সমাপ্ত হয়। মিছিল পরবর্তী সমাবেশে নেতৃবৃন্দ উপরোক্ত কথা বলেন।
মিছিলে সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন- সিলেট জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক সাবেক এমপি দিলদার হোসেন সেলিম, জেলা যুগ্ম আহ্বায়ক আবুল কাহের চৌধুরী শামীম, সিলেট মহানগর বিএনপির সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি নাসিম হোসাইন, জেলা যুগ্ম আহ্বায়ক আলী আহমদ, যুগ্ম আহ্বায়ক আব্দুল মান্নান, যুগ্ম আহ্বায়ক এমরান আহমদ চৌধুরী, সিলেট মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য মিফতাহ সিদ্দীকি, ডা: নাজমুল ইসলাম, সৈয়দ মইনুদ্দিন সোহেল, জেলা যুবদলের সাধারন সম্পাদক মামুনুর রশীদ মামুন, মহানগর বিএনপি সদস্য আব্দুল জব্বার তুতু, দক্ষিণ সুরমা উপজেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক শামীম আহমদ, বিএনপি-যুবদল-ছাত্রদল নেতৃবৃন্দের মধ্যে মনিরুল ইসলাম, মামুনুর রহমান মামুন, বজলুর রহমান ফয়েজ, লায়েছ আহমদ, হাবিব আহমদ, মইনুল ইসলাম মঞ্জু, আশরাফ বাহার, মকসুদুল করিম নোহেল, মাসুক আহমদ, লয়লু মিয়া, সেলিম আহমদ, আব্দুস সালাম, আব্দুল বাছিত, দিলোয়ার আহমদ, আব্দুর রউফ, মুরাদ হোসেন, মাজেদ খান, মোবরক হোসেন তুহিন, মাসুম পারভেজ, সোহেল ইবনে রাজা, সুমন আহমদ বিপ্লব, সাইদুর রহমান, আকাব উদ্দিন পলাশ, জুনেদ আহমদ জাবেদ, সোহেল আহমদ, মিজান শেখ, মখলিছুর রহমান, জিয়া উদ্দিন, আজাদ আহমদ, সাইফুল ইসলাম সেবুল, সোহেল আহমদ(২), আফজাল হোসেন, সুজন আহমদ, ইব্রাহিম মিয়া, হোসেন খান ইমাদ, কাউসার হোসেন রকি, আসাদ আহমদ, দুলাল রেজা, আজাদ আহমদ(২), মোহাম্মদ আলী, আব্দুল মজিদ, লেগুন মিয়া, এনামুল হক, জুনেদ আহমদ, শাহজাহান আহমদ, আরিফ আহমদ, শামীম আহমদ, লালা আহমদ, হৃদয় দাস, দুলাল আহমদ, সাব্বির আহমদ, শামসুদ্দিন শুভ, মোস্তফা আলম, আবিদ খান, শাহীন খান, ককন আহমদ, শাহরিয়ার আহমদ, সাব্বির খান, মাহবুব আহমদ, শিমুল মিয়া, রুহেল মিয়া, মাসুক মিয়া, পল্লব রায়, আমিন আহমদ, আব্দুস সালাম, আক্তার আহমদ ও জুনু মিয়া প্রমুখ।
নেতৃবৃন্দ- ২০ দলীয় জোট কেন্দ্র আহুত রবিবার থেকে টানা ৭২ ঘন্টার হরতাল পালনের পর ৪৮ ঘন্টার শান্তিপূর্ন ও সর্বঠত্মকভাবে পালন করায় সিলেটবাসীকে অভিনন্দন জানান। একই সাথে সাময়িক ক্ষতি স্বীকার করে দেশ-জাতি ও গনতন্ত্র পুনরুদ্ধারের জাতীয় স্বার্থে টানা অবরোধ সহ সকল কর্মসুচী সফলের জন্য পরিবহন মালিক, শ্রমিক, ব্যাবসায়ী নেতৃবৃন্দসহ সিলেটবাসীর প্রতি আহ্বান জানান। বিজ্ঞপ্তি

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close