আপাতত কার্যালয়েই থাকছেন খালেদা : পল্টন কার্যালয়ে নিরাপত্তা জোরদার

BNP Office Paltanসুরমা টাইমস ডেস্কঃ বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া গুলশানে অবস্থিত তার রাজনৈতিক কার্যালয় থেকে পরবর্তী কোনো সিদ্ধান্ত না হওয়া পর্যন্ত বের হবেন না।
সোমবার দুপুরে খালেদা জিয়ার মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শাইরুল কবির খান গনমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।
শাইরুল কবির বলেন, ‘বর্তমানে দেশে অবরোধ চলছে। তাই নতুন করে দলের কোনো সিদ্ধান্ত না হওয়া পর্যন্ত গুলশানের কার্যালয় থেকে বের হওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই খালেদা জিয়ার।’
এর আগে রোববার রাত আড়াইটার দিকে বিএনপির চেয়ারপারসনের এই কার্যালয়ের সামনে থেকে পুলিশের দুটি ভ্যান ও জলকামান সরিয়ে নেওয়া হয়। সেই সঙ্গে কার্যালয়ের সামনে অবস্থানরত অতিরিক্ত পুলিশ সদস্যদেরও প্রত্যাহার করা হয়। এর পর থেকে সেখানে অল্প কয়েকজন পুলিশ সদস্য দায়িত্ব পালন করছিলেন। তবে সোমবার দুপুরে সেই অল্প কয়েকজন পুলিশ সদস্যকেও সেখান থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।
বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার গুলশান কার্যালয় থেকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের তুলে নেয়া হলেও নয়াপল্টনে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। সোমবার ভোর ৪ টায় দিকে গুলশান রাজনৈতিক কার্যালয়ের সামনে থেকে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের তুলে নেওয়া হয়েছে বলে চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইং কর্মকর্তা শামসুদ্দিন দিদার ঢাকাটাইমস টোয়েন্টিফোর ডটকমকে তথ্যটি নিশ্চিত করেন। তবে বিগত কয়েক দিন নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে নিরাপত্তা শিথিল থাকলেও সোমবার সকাল থেকে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।
সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যের সংখ্যা বাড়ানো হয়েছে। অতিরিক্ত সদস্যদের পাশাপাশি র‌্যাব, সাদা পোশাকধারী গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যদের মোতায়েন করা হয়েছে। এ ছাড়া জলকামান, এপিসি ও প্রিজন ভ্যান রাখা হয়েছে।
দেশের প্রধান বিরোধী রাজনৈতিক দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ১৭ দিন ধরে তালা ঝুলছে। এই ১৭ দিন নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে কোন নেতা-কর্মীকে আসতে ও যেতে দেখা যায়নি।
বিএনপির নেতা-কর্মীরা অফিসে আসলে তাদের গ্রেপ্তার করা হবে কি না- এই প্রশ্নের জবাবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে দায়িত্বরত এক পুলিশ কর্মকর্তা ঢাকাটাইমস টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, এ ধরনের কোন নির্দেশ উপর থেকে দেওয়া হয়নি । তবে পরিস্থিতির উপর সব কিছু নির্ভর করবে।
বেগম খালেদা জিয়া ঘোষিত ৭ দফা দাবি বাস্তবায়ন, নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাধায়ক সরকার ব্যবস্থা ও আটককৃত নেতাদের মুক্তির দাবিতে ১৪ দিন অবরোধ কর্মসূচি পালন করছে বিএনপি। কিন্তু গ্রেপ্তার আতঙ্কে বিএনপির শীর্ষস্থানীয় নেতা-কর্মীরা কার্যালয়ে আসছেন না।
এসব বিষয় নিয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য বিগ্রেডিয়ার জেনারেল (অব.) আ স ম হান্নার শাহর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তাকে ফোনে পাওয়া যায়নি। একই বিষয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য নজরুল ইসলাম খানকেও ফোনে পাওয়া যায়নি।
তবে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য এম কে আনোয়ারকে ফোনে পাওয়া গেলেও তিনি বতর্মান রাজনৈতিক বিষয়ে কথা বলতে অনীহা প্রকাশ করেন।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close