দরগাহ মাদ্রাসার ৪০ সালা দস্তারবন্দী সম্মেলন আজ শুরু

Dorgah Madrasaসুরমা টাইমস ডেস্কঃ ঐতিহ্যবাহী জামেয়া ক্বাসিমুল উলুম দরগাহে হযরত শাহজালাল (রহ:) সিলেটের ৪০ সালা দস্তারবন্দী মহা সম্মেলন আজ বৃহস্পতিবার শুরু হচ্ছে। সম্মেলন চলবে আগামী শনিবার পর্যন্ত। প্রতিদিন বাদ যোহর সম্মেলন শুরু হবে। আজ বেলা আড়াইটায় প্রধান অতিথি হিসাবে মহাসম্মেলনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত। এরই মধ্যে সম্মেলনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে বলে জানিয়েছেন আয়োজকরা। ৩ দিনের এ সম্মেলনের পৃথক ১২টি অধিবেশনে দেশ-বিদেশের প্রখ্যাত ইসলামী চিন্তাবিদগণ আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে অংশগ্রহণ করবেন। উদ্বোধনী দিনে উপমহাদেশের শীর্ষ ধর্মীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দারুল উলুম দেত্তবন্দের সাবেক শিক্ষক মাওলানা ক্বারী আব্দুলাহ সালিমসহ আমেরিকা, যুক্তরাজ্যের বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদগণ ছাড়াও দেশের প্রখ্যাত আলেমগণ অংশ নেবেন। ২য় দিন আগামীকাল শুক্রবার হেফাজতে ইসলামের আমীর ও চট্টগ্রামের দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম হাটহাজারীর মহাপরিচালক আলামা আহমদ শফিসহ দেশ বিদেশের শীর্ষ আলেমগণ অংশগ্রহণ করবেন।
সমাপনী দিন শনিবারে ভারতের প্রখ্যাত আলেম আলামা সৈয়দ আরশাদ মাদানীসহ দেশ-বিদেশের প্রখ্যাত ইসলামী চিন্তাবিদগণ অংশ নেবেন। ৩ দিন ব্যাপী এই সম্মেলনকে সফল করতে গত কয়েক মাস ধরে চলছে প্রস্তুতি।
সংশিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, প্রখ্যাত আলেম মাওলানা আকবর আলী (রহ:) ১৯৬১ সালের ৭ নভেম্বর এই জামেয়া প্রতিষ্ঠা করেন। ১৯৮৯ সালে প্রথমবারের মতো জামেয়ার দস্তারবন্দী অনুষ্ঠিত হয়েছিল। আজ বৃহস্পতিবার থেকে ২য় বারের মতো দস্তারবন্দী সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। গত ৪০ বছরে এই জামেয়া থেকে দাওরায়ে হাদীস (টাইটেল) পাশ করেছেন ১ হাজার ৪শ’ ৩০ জন। দারুল ইফতা বিভাগ (আইন বিভাগ) পাশ করেছেন ৮৬ জন। এ সকল উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদেরকে পাগড়ী পড়িয়ে দেয়া হবে। তাদের হাতে তুলে দেয়া হবে সনদপত্র। এ সকল শির্ক্ষার্থীর মধ্যে ১ হাজার ৩শ’র বেশী শিক্ষার্থী এতে অংশ গ্রহণের লক্ষ্যে নাম নিবন্ধন করেছেন। উত্তীর্ণদের মধ্যে প্রায় ৫০ জন মারা গেছেন। যারা মারা গেছেন তাদের পাগড়ী ও সনদপত্র উত্তরাধিকারীর নিকট পৌঁছে দেয়া হবে বলে মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল মুফতি মাওলানা আবুল কালাম যাকারিয়া জানিয়েছেন। তিনি জানান, এ সম্মেলন হবে স্মরণকালে বৃহত্তম সমাবেশ। দস্তারবন্দীকে ঘিরে জামেয়া চত্বরে সাটানো হয়েছে নানা রং এর ব্যানার, ফেস্টুন ও বিলবোর্ড। বৃহত্তর সিলেটের বিভিন্ন স্থানে সাঁটানো হয়েছে ব্যানার, পোস্টার। আলীয়া মাদ্রাসা মাঠে বিশাল প্যান্ডেল নির্মাণ শেষ পর্যায়ে। প্যান্ডেলের পাশেই বসছে ইসলামী সাহিত্যের সারিবদ্ধদোকান। মাইক টানানোর কাজও চলছে। সিএনজি অটোরিক্সা, রিকসায় করে চলছে শেষ মুহুর্তের বিরামহীন প্রচারণা। সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্ঠায় এ সম্মেলন সিলেটের শিক্ষা ক্ষেত্রে নতুন ধারার সৃষ্টি করবে বলে জানিয়েছেন এর বাস্তবায়ন কমিটির প্রচার সচিব মাওলানা রশীদ আহমদ।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close