মাশুক হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন : ৭২ ঘন্টার আল্টিমেটাম

DSC_2910সিলেট সদর উপজেলার সাহেববাজার এলাকায় সন্ত্রাসীদের হাতে নির্মমভাবে নিহত মাশুক মিয়া হত্যার প্রতিবাদে এবং ঘটনার সাথে জড়িত খুনিদের দ্রুত গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শনিবার দুপুরে সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্বরে মাশুক স্মৃতি পরিষদের উদ্যোগে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। পরিষদ এর আহ্বায়ক মাওলানা আব্দুল হান্নানের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব মো. ইদ্রিছ আলী ও খাদিমনগর ছাত্রকল্যাণ পরিষদের সিনিয়র সহ-সভাপতি, তরুন সংস্কৃতিকর্মী আবু বকর আল আমিনের যৌথ পরিচালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, ৩নং খাদিমনগর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডি) সিলেট জেলা সভাপতি সিরাজুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাক আহমদ বাবুল, সাংবাদিক বশির আহমদ, মাশুক স্মৃতি পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক জালাল উদ্দিন, অ্যাডভোকেট খোরশেদ আলম, সাবেক ইউপি সদস্য ফারুক আহমদ সারো, ছাত্রনেতা নজরুল ইসলাম, তরুন সমাজসেবী সাঈদুর রহমান সাঈদ।

ক্বারী আব্দুল বাছিতের কোরআন তেলায়াতের মধ্যদিয়ে সভায় বক্তারা বলেন, কৃষক সংগ্রাম পরিষদ নামে জঙ্গি সংগঠনের ব্যানারে হামলা চালিয়ে মাশুককে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে। কিন্তু ঘটনার ১৫দিন পেরিয়ে গেলেও এখনো মূলহোতাদের গ্রেফতার করা হয়নি। এজন্য প্রশাসনের প্রতি ক্ষোভ জানিয়ে বক্তারা আগামী ৭২ ঘন্টার মধ্যে মাশুক হত্যার সাথে জড়িত খুনীদের গ্রেফতারের জন্য প্রশাসনের প্রতি জোর দাবি জানান। অন্যতায় তীব্র আন্দোলনের মাধ্যমে আরো কঠোর কর্মসূচি দিয়ে অবিলম্বে খুনিদের আইনের আওতায় নিয়ে আসতে প্রশাসনকে বাধ্য করা হবে বলেও বক্তারা হুশিয়ারি উচ্চারণ করেন।
এদিকে আগামী সোমবার বাদ জোহর দরগাহে হযরত শাহজালাল (রহ.) মাজার মসজিদে নিহত মাশুকের রুহের মাগফেরাত কামনা করে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল এবং বুধবার বিকাল ৪টার সময় সাহেবের বাজারে প্রতিবাদ সমাবেশের কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, মোস্তফা মিয়া, মাশুক স্মৃতি পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক মাস্টার জালাল উদ্দিন, সাবেক ইউপি সদস্য ময়না মিয়া, আলাল উদ্দিন, মতিন খাঁ, মখলিছ মিয়া, দেলোওয়ার হোসেন, ফারুক মিয়া, ওয়াহিদ আলী, আমির আলী, মোহাম্মদ আলী বটল, আব্দুল ওয়াহিদ, মোয়াজ্জিন হোসাইন, মতিউর রহমান, এমরান আলী, আশিক মিয়া, আনা মিয়া, বিলাস নায়েক, লেবেন নায়েক, শ্রীবাস মহালী প্রমুখ।
মানববন্ধনে সাহেবের বাজার এলাকার ফরিংউরা, দেওয়াইবহর, পীরেরগাঁও, কালাগুল, বড়বন্দ, ছালিরমহল, ফতেহগড়, মোকামটিলা, এওরারটুক, চান্দাই, চাঁনপুর, কান্দিরপথ, বাজারতল, রামপুর, ঘুরামারা, লাউগুল, ভোলাকুনা (ইসলামপুর) পাঠানগাঁও, টিলাপাড়া, লীলাপাড়া, হানাপাড়া, ধোপাগুল, মংলিরপার, কাকুরপারসহ বিভিন্ন গ্রামের শত শত মানুষ অংশগ্রহন করেন। বিজ্ঞপ্তি

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close