৩৬ বিয়ের পর সাবুর অনুশোচনা!

sabu miahসুরমা টাইমস ডেস্কঃ স্ত্রীদের মধ্যে শুধু মিনারা, আপেলা, খুর্শেদা, আছিয়া, সাফিয়া, দোলনা আর সর্বশেষ সুফিয়ার নাম মনে আছে। ৬০ বছরে তার স্ত্রীদের তালিকা একবারে ছোট নয়। মাত্র ৩৬টি!
১৭ বছর থেকে বিয়ে করা শুরু। এখন আর বিয়ে করতে মন চায় না স্বামী সাবু মিয়ার। মনে অনুশোচনা ভর করেছে তার। এখন তার ইচ্ছা মাজারে মাজারে গিয়ে আল্লাহর কাছে গিয়ে ক্ষমা চাইতে।
হবিগঞ্জ শহরের উমেদনগর মোড়লহাটির এলাকার রিকশাচালক সাবু মিয়া। বাবা বয়াত উল্লা ছিলেন কৃষক। বেশী রোজগারের আশায় তিনি রিকশা চালিয়েছেন ময়মনসিংহ, নোয়াখালী, চট্রগ্রাম, কুমিল্লা, কিশোরগঞ্জে। বর্তমান স্ত্রীর (সাফিয়া) বাপের বাড়ি সিলেটে হওযায় সেখানেই আছেন সন্তান ও নাতি নাতনীদের নিয়ে।
সাবু মিয়া বলেন , “পাকিস্তান আমলে আমাদের এলাকায় বেশী বিয়ে করা কিছু কিছু লোকের স্বভাব ছিল। আমার বাবাও করেছেন সাত বিয়ে।”
তিনি জানান, মাত্র ১৭ বছর বয়সে সাবু মিয়া প্রথম বিয়ে করেন আজমিরিগঞ্জ উপজেলার ষোড়শী মিনারাকে। পরের বছর একই উপজেলার আপেলাকে নিয়ে আসেন ঘরে। দুই সন্তান জন্ম দিয়ে দুই বছর পর প্রথম স্ত্রী মিনারা নিজেই সংসার ত্যাগ করেন। এর কিছুদিন পর আরেক স্ত্রী খুর্শেদাকে নিয়ে সংসার পাতেন। এরপর দেশের বিভিন্ন জায়গার আছিয়া, দোলনাসহ মোট ৩৪জন স্ত্রীর সাথে সংসার করেছেন; বড় জোর ১ বছর করে।
সাবু মিয়া বলেন, “কোনো বিয়েরই কাবিন ছিল না। শুধু মোল্লা মৌলভীকে দিয়ে দুজন কবুল করেই সংসার।”
দীর্ঘ সময়ের এই একাধিক বিয়েতে স্ত্রীরা তাকে ত্যাগ করেছে অথবা তিনি নিজেও তালাক দিয়েছেন তাদের। কতজন সন্তান তা মনে করতে না পারলেও ১১জন পুত্রকন্যাদের নাম তার মনে আছে।
সাবু মিয়া জানান, তিন ডজন স্ত্রীদের মধ্যে সুফিয়া ছিল খুবই বদমেজাজী। যার সঙ্গে প্রতিদিন ঝগড়াঝাটি হতো। বর্তমানে সুফিয়াই তার সঙ্গী। যাকে নিয়ে সংসার করছেন সিলেটের জাঙ্গাইল এলাকায়।
সাবু মিয়া আক্ষেপ করে জানান, বিয়ের নেশায় যে অর্থ তিনি নষ্ট করেছেন তা দিয়ে হয়তো সিলেট মহানগরীর শাহজালাল উপশহরের জায়গার মালিক হতে পারতেন। যে জায়গা এখন কোটি কোটি টাকায় বিক্রি হয়।
তিনি জানালেন, সিলেট নগরীতে তার শ্বশুর বাড়ির পক্ষ থেকে স্ত্রী সুফিয়াকে কিছু জায়গা দেওয়া হয়েছে। চার ছেলে মেয়ে তিনি সেখানেই বর্তমানে বাস করছেন।
সাবু বলেন, “এখন মনে হয় মাটি (কবর) টানে। পরকাল নিয়ে চিন্তা করি। জীবনে বহু গোনাহ করেছি। আগের বিয়ের কথা গোপন রেখে, মিথ্যা কথা বলে অনেক বিয়ে করেছি। উপরওয়ালার (আল্লাহ) কাছে কী জবাব দিমু। খালি মাজারে মাজারে ঘুরে আল্লাহর কাছে মাফ চাইতে মন চায়।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close